Cervical Cancer in India: বছরে ৭৭ হাজার ভারতীয় মহিলার মৃত্যুর কারণ সার্ভিক্যাল ক্যানসার, সমীক্ষা রিপোর্টে উদ্বেগ

সার্ভিক্যাল বা জরায়ুমুখ ক্যানসারের (Cervical Cancer in India) ঝুঁকি কমাতে জাতীয় কার্যক্রমে এইচপিভি ভ্যাকসিন (HPV vaccine) অন্তর্ভুক্ত করার আর্জি জানানো হয়েছে। কারণ, ভ্যাকসিন দিলে সার্ভিক্যাল ক্যানসারের সম্ভাবনা ৯০ শতাংশ কমে যায়।

Cervical Cancer in India: বছরে ৭৭ হাজার ভারতীয় মহিলার মৃত্যুর কারণ সার্ভিক্যাল ক্যানসার, সমীক্ষা রিপোর্টে উদ্বেগ
ছবিটি সংগৃহীত

নয়াদিল্লি: প্রতি বছর শুধু সার্ভিক্যাল ক্যানসারে (Cervical Cancer in India) মারা যান প্রায় ৭৭ হাজার ভারতীয় মহিলা। স্বাধীনতার ৭৫ বছর পার করেও দেশের ৪৫ কোটিরও বেশি মহিলা এই মারণ রোগের ঝুঁকিতে রয়েছেন। ফেডেরেশন অফ অবস্টেট্রিক অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটিস অফ ইন্ডিয়া (FOGSI) এ নিয়ে উদ্বিগ্ন। তাদের এই উদ্বিগের কথা জানানো হয়েছে কেন্দ্রকে। সার্ভিক্যাল ক্যানসারের ঝুঁকি কমাতে জাতীয় কার্যক্রমে এইচপিভি ভ্যাকসিন (HPV vaccine) অন্তর্ভুক্ত করার আর্জি জানানো হয়েছে। কারণ, ভ্যাকসিন দিলে সার্ভিক্যাল ক্যানসারের (Cervical Cancer in India) সম্ভাবনা ৯০ শতাংশ কমে যায়।

১৯ অক্টোবর, বুধবার নয়াদিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স (AIIMS)-এ বিশেষজ্ঞদের নিয়ে এক সভার আয়োজন করেছিল এফওজিএসআই। এই বৈঠকের থিম ছিল সার্ভিক্যাল ক্যানসার মুক্ত ভারত।

সার্ভিক্স  বা জরায়ুমুখ ক্যানসার (Cervical Cancer in India) মূলত হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস (Human Papilloma Virus)-এর সংক্রমণের কারণে হয়ে থাকে। মাইল্ড ডিসপ্লাসিয়া (Mild Dysplasia) সমস্যা হিসেবে শুরু হওয়া এই রোগ ১০ থেকে ২০ বছরের ব্যবধানে সার্ভিক্যাল ক্যানসারে রূপ নেয়। সমীক্ষা রিপোর্ট অনুসারে, ভারতে প্রতি বছর ১ লক্ষ ২০ হাজার মহিলা এই রোগে আক্রান্ত হন। প্রতিবছর মৃত্যু হয় ৭৭ হাজার ভারতীয় মহিলার। ওই সমীক্ষা রিপোর্ট অনুযায়ী, ১৫ ঊর্ধ্ব বয়স, এমন ৪৫ কোটি ৩০ লক্ষ মহিলা ও কিশোরীর সার্ভিক্যাল ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। 

ALSO READ| Plan to Divide Bengal: শাহি চালে ঘুরপথে কেন্দ্র কি বাংলা ভাগ করতে চলেছে

এফওজিএসআই জানাচ্ছে, সার্ভিক্যাল ক্যানসার প্রতিরোধ করার  একমাত্র উপায় হল এইচপিভি ভ্যাকসিন এবং নিয়মিত স্ক্রিনিং। সম্প্রতি দেশে ভারতীয় প্রযুক্তিতে এইচপিভি ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে। খুব শিগগির তা অন্য দেশেও রফতানি করা হবে।  দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে, বিশেষত গ্রামাঞ্চলের মহিলাদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই সংস্থাটি চাইছে কেন্দ্র পদক্ষেপ করুক। এ জন্য সর্বাগ্রে চাই জন সচেতনতা। 

ALSO READ| Mamata Banerjee: পশ্চিমবঙ্গকে ভাগ করতে দেব না, উত্তরবঙ্গে বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়