Child Trafficking: ভারতে পাচারের আগে উদ্ধার বাংলাদেশের স্কুলছাত্রী

সাতক্ষীরার দেবহাটা থানার পদ্মশাখরা সীমান্ত এলাকা থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ( Bangladeshi Schoolgirl Rescued) এক কিশোরীকে (Child Trafficking) উদ্ধার করা হয়েছে। যদিও এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত সুমন হোসেনের বাবার দাবি, ভারতে পাচারের অভিযোগ ঠিক নয়।

Child Trafficking: ভারতে পাচারের আগে উদ্ধার বাংলাদেশের স্কুলছাত্রী
ছবিটি প্রতীকী

ঢাকা: প্রেমের ফাঁদে ফেলে নাবালিকা স্কুলছাত্রীকে ভারতে পাচারের চেষ্টা (Child Trafficking) করেছিল এক যুবক। পুলিশের তত্‍পরতায় সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। সাতক্ষীরার ওই ছাত্রীকে সোমবার দুপুরে পরিবারের হাতে তুলে দেয় পুলিশ। সাতক্ষীরার দেবহাটা থানার পদ্মশাখরা সীমান্ত এলাকা থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী, ওই কিশোরীকে  উদ্ধার করা হয়েছে (Bangladeshi Schoolgirl Rescued)। যদিও এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত সুমন হোসেনের বাবার দাবি, ভারতে পাচারের অভিযোগ ঠিক নয়। ওই নাবালিকা আমার ছেলের প্রেমে পড়ে স্বেচ্ছায় বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে এসেছিল (Bangladeshi Schoolgirl Rescued)।

কিন্তু ওই ব্যক্তির কথায় অনেক অসংগতি রয়েছে। সীমান্ত এলাকায় কিশোরীকে কী উদ্দেশ্যে আনা হয়েছিল (Child Trafficking), তার জবাব সুমনের পরিবারের কাছে ছিল না। অভিযুক্ত সুমন হোসেনের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা রুজু করে বাংলাদেশ পুলিশ। তবে, সুমন হোসেনকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি।

সূত্রের খবর, রবিবার রাতে সাতক্ষীরার দেবহাটা থানার এসআই নুর মহম্মদের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পদ্মশাখরা সীমান্ত এলাকা থেকে ওই ছাত্রকে উদ্ধার করে। সুমনের বাড়ি সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার ঢেপুখালিতে। স্কুলছাত্রীর বাড়ি শরিয়তপুর জেলার জাজিরায়।

নাবালিকার মা জানান, বৃহস্পতিবার (২ জুন) সকালে আমার মেয়ে স্কুলে পরীক্ষা দিতে যায়। কিন্তু বিকেল গড়ালেও বাড়িতে ফেরেনি। ফলে, দুশ্চিন্তা বাড়ে। অনেক খোঁজাখুঁজির পর শেষে জাজিরা থানায় একটি জিডি করা হয়। তার পরেই পুলিশ তৎপর হয়।

ALSO READ| Chittagong fire: কন্টেনারে তীব্র বিস্ফোরণেই বিপত্তি, ভোরেও আগুন জ্বলছে চট্টগ্রামে 

অভিযোগ অস্বীকার করে সুমনের বাবা সবুর সরদার জানান, ছেলে শরিয়তপুরে ইটভাটায় কাজ করত। মেয়েটির সঙ্গে সেখানে সুমনের পরিচয়। সেই সূত্রে সুমনের হাত ধরে মেয়েটি পালিয়ে আসে। অপহরণের অভিযোগ ঠিক নয়।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, মেয়েটিকে দেবহাটা উপজেলার আতাপুর গ্রামে সুমনের ভগ্নীপতি আলি সরদারের বাড়িতে রাখা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ সেখানে পৌঁছনোর আগেই ওই কিশোরীকে সরিয়ে ফেলা হয়। শেষ পর্যন্ত পদ্মশাখরা সীমান্ত এলাকা থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। সেখান থেকে ওই কিশোরীকে ভারতে পাচারের চেষ্টা করা হচ্ছিল।

ALSO READ| Chittagong container Depot Fire: চট্টগ্রামের অগ্নিকাণ্ডে মৃত বেড়ে ৩৩, তদন্ত কমিটি গড়ল দমকল