Imran Khan: পাকিস্তানে গুলিবিদ্ধ ইমরান খান

পাকিস্তানে রাজনৈতিক নেতাদের লক্ষ্য করে গুলি চালনার ঘটনা এই প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার এমন ঘটনা ঘটেছে।

Imran Khan: পাকিস্তানে গুলিবিদ্ধ ইমরান খান

ইসলামাবাদ: গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে পায়ে লাগায় এ যাত্রায় অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন ইমরান খান (Imran Khan)। পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের প্রধান, দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী  (Former PM of Pakistan) ইমরান খানের ডান পায়ে গুলি লেগেছে। এসইউভিতে ছিলেন ইমরান। লং মার্চে যোগ দেওয়ার জন্য দলীয় সমর্থকদের কাছে আহ্বান জানাচ্ছিলেন। সেসময় আলওয়ালা চকে ইমরানের কনভয় লক্ষ্য করে অতর্কিতে হামলা হয়। এলোপাথাড়ি গুলি চালায় বন্দুকবাজ। ইমরান সহ মোট ৫ জন গুলিবিদ্ধ বলে জানা গিয়েছে। আহতদের মধ্যে তাঁর ম্যানেজার রশিদ এবং সিন্ধের প্রাক্তন গভর্নর ইসমাইলও রয়েছেন। এই ঘটনার জেরে ইমরান খানের নিরাপত্তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

পাকিস্তানে রাজনৈতিক নেতাদের লক্ষ্য করে গুলি চালনার ঘটনা এই প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার এমন ঘটনা ঘটেছে। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী লিকাকত আলি খান জনসভায় গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন। ২০০৭ সালের ২৭ ডিসেম্বর রাওয়ালপিন্ডির এক নির্বাচনী সভা শেষে গাড়িতে ওঠার সময় অতর্কিতে হামলায় প্রাণ হারান বেনজির ভুট্টো। প্রথমে বেনজির ভুট্টোর ঘাড়ে গুলি করা হয়। মৃত্যু নিশ্চিত করতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

পাকিস্তানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে শুক্রবার লাহোর থেকে ইসলামাবাদ পর্যন্ত লং মার্চের ডাক দিয়েছেন প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী। দলের সমস্ত নেতা, কর্মী ও সমর্থকদের উদ্দেশে লাহোরের লিবার্টি চকে সমবেত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইমরান খান। পরিকল্পনা ছিল, সেখান থেকে ৪০০ কিলোমিটার হেঁটে তাঁরা ইসলামাবাদে যাবেন। সেই উপলক্ষেই দলীয় সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন। তখনই ঘটে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।

পাকিস্তান তেহরিক ইনসাফ নেতা ফাওয়াদ হুসেন বলেন, 'এটা শুধু ইমরান খানের উপর নয়, পুরো পাকিস্তানের ওপর আক্রমণ । কোনও জঙ্গি সংগঠনের কাজ কি না, পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে। সূত্রের খবর, বন্দুকবাজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে কী কারণে গুলি চালানো হয়েছে, তা এখনও অস্পষ্ট।

গত মাসে পাক নির্বাচন কমিশন ইমরান খানকে সংসদে অযোগ্য ঘোষণা করেছে। তার আগে তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদও খোয়ান। সংসদে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পরই ইমরান তাঁর সমর্থকদের বড় আন্দোলনে নামার আহ্বানও জানিয়েছিলেন।