Omprakash Mishra: উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী উপাচার্য ওমপ্রকাশ মিশ্র

সম্প্রতি এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে সিবিআই গ্রেফতার করে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের (North Bengal University) উপাচার্য সুবীরেশ ভট্টাচার্যকে। তাঁর জায়গায় অস্থায়ী উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ করা হল অধ্যাপক ওমপ্রকাশ মিশ্রকে (Omprakash Mishra)।

Omprakash Mishra: উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী উপাচার্য ওমপ্রকাশ মিশ্র

শিলিগুড়ি: উত্তরবঙ্গ এবং দার্জিলিং হিলস বিশ্ববিদ্যালয়ের (North Bengal University) অস্থায়ী উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ করা হল অধ্যাপক ওমপ্রকাশ মিশ্রকে (Omprakash Mishra)। আগামী তিন মাস তিনি ওই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসাবে দায়িত্ব সামলাবেন। তিনি সুবীরেশ ভট্টাচার্যের স্থলাভিষিক্ত হলেন। উচ্চশিক্ষা দফতর বুধবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে। অধ্যাপক ওমপ্রকাশ মিশ্র তৃণমূলের শিক্ষা সেলের নেতা হিসাবে পরিচিত। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক। বিভিন্ন বেসরকারি টিভি চ্যানেলে তাঁকে তৃণমূলের হয়ে বসতে দেখা গিয়েছে বহুবার।

বুধবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি মন্তব্য করেন, সুবীরেশ ভট্টাচার্য একা এই নিয়োগ দুর্নীতি করেননি। নিশ্চয়ই কারও নির্দেশে তিনি এসব করতে বাধ্য হয়েছেন। আমি তাঁকে চিনি। তিনি ভালো লোক। সিবিআইয়ের আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, 'সুবীরেশকে হেফাজতে নিয়ে জানার চেষ্টা করুন, কার অঙ্গুলিহেলনে তিনি এসব কাজ করেছেন।'

সম্প্রতি এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে সিবিআই গ্রেফতার করে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুবীরেশ ভট্টাচার্যকে। তার পর কাউকে আর ওই পদে নিয়োগ করা হয়নি। ফলে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী, শিক্ষক, অফিসাররা চরম বিপাকে পড়েন। প্রশাসনিক কাজে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।

ALSO READ| TMC News: হুগলির পুরশুড়ায় তৃণমূল কর্মীর দেহ উদ্ধার, ধড় থেকে ৭০০ মিটার দূরে মিলল মুণ্ড!

সুবীরেশের গ্রেফতারির পরদিন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু মন্তব্য করেছিলেন, এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতি তৈরি হল। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে হবে। যদিও রাজ্য সরকার তাঁকে অপসারণ করেনি।  সুবীরেশকে উত্তরবঙ্গ এবং দার্জিলিং হিলস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদে রেখে দেওয়া হল, তা নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখেও পড়তে হয় সরকারকে।

ALSO READ|  Duare Ration News: 'দুয়ারে রেশন' বন্ধ করতে নারাজ রাজ্য, সুপ্রিম কোর্টে যাবে খাদ্য দফতর