Kabul suicide bombing: কাবুলের শিক্ষা কেন্দ্রে ভয়ানক আত্মঘাতী হামলা, বেঘোরে মৃত্যু ১০০ পড়ুয়ার

সূত্রের খবর, কাবুল শহরের পশ্চিমে দস্ত-ই-বারচি এলাকায় ‘কাজ এডুকেশন সেন্টারে’ আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়। এই হামলায় বেশির ভাগই স্কুলপড়ুয়া (suicide bombing at an education centre) নিহত হয়েছেন।

Kabul suicide bombing: কাবুলের শিক্ষা কেন্দ্রে ভয়ানক আত্মঘাতী হামলা, বেঘোরে মৃত্যু ১০০ পড়ুয়ার
ছবিটি সংগৃহীত

কাবুল: আফগানিস্তানের রাজধানী শহর কাবুলে (suicide bombing at Kabul school) শুক্রবার এক আত্মঘাতী বিস্ফোরণে (Kabul suicide bombing ) কমপক্ষে ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তালিবানরা কাবুল দখল করার পর থেকে একাধিক বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলেও এমন মর্মান্তিক, প্রাণঘাতী হামলা এই প্রথম। শুক্রবার সকালে কাবুলের একটি টিউশন সেন্টারের ক্লাসরুমের মধ্যে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। মৃতদের সিংহভাগই স্কুলপড়ুয়া।

সূত্রের খবর, কাবুল শহরের পশ্চিমে দস্ত-ই-বারচি এলাকায় ‘কাজ এডুকেশন সেন্টারে’ আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়। এই হামলায় বেশির ভাগই স্কুলপড়ুয়া (suicide bombing at an education centre) নিহত হয়েছেন। এই এডুকেশন সেন্টারে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষার মক টেস্ট চলছিল। স্বভাবতই ক্লাসরুম ভিড়ে ছিল ঠাসা। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জানা যায়, আত্মঘাতী হামলায় (Kabul suicide bombing) হতাহতদের বেশির ভাগই শিয়া সম্প্রদায়ের। এই আত্মঘাতী হামলা তীব্র নিন্দা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তালিবানরা ক্ষমতা দখল করার আগে কাবুলের দস্ত-ই-বারচিতে জঙ্গি বিস্ফোরণে ৮৫ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন।

ALSO READ| Mirabai Chanu: জাতীয় গেমসে সোনা মীরাবাঈ চানুর 

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, অন্ততপক্ষে ১০০ পড়ুয়ার মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা বহু। ভয়াবহ আত্মঘাতী বিস্ফোরণের পর ওই কোচিন সেন্টারের সর্বত্র ছিন্নভিন্ন দেহাংশ ছড়িয়ে ছটিয়ে রয়েছে। চারপাশে আর্তনাদ।  বিস্ফোরণের পর ওই এলাকা ঘিরে ফেলে নিরাপত্তা বাহিনী। এই হামলার দায় এখনও পর্যন্ত কেউ স্বীকার করেনি। তবে, সন্দেহ করা হচ্ছে ইসলামিক স্টেট খোরাসান প্রভিন্স বা আইএসকেপি'কে। এই ইসলামিক সংগঠনটি আগেও কাবুলে হামলা চালিয়ে।

ALSO READ| Manik Bhattacharya SSC: লক্ষ্মীপুজো পর্যন্ত নিশ্চিন্তে মানিক ভট্টাচার্য, সুপ্রিম নির্দেশে গ্রেফতার করা যাবে না